প্রাণের ৭১

শনিবার, এপ্রিল ১৩th, ২০১৯

 

বিচারের দাবিতে রাজপথে চলচ্চিত্র শিল্পীরা

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি ও ডিরেক্টরস গিল্ডের পক্ষে শোবিজ তারকা ও সাধারণ মানুষ এক হয়ে নুসরাত জাহান রাফি হত্যার বিচারের দাবিতে রাজপথে নামে গতকাল। ১১ এপ্রিল রাতে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির পক্ষ থেকে শোবিজ তারকাদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান জানানো হয় ১৩ এপ্রিল সকাল ১১টায় এফডিসির মূল ফটকের উল্টো পাশে জড়ো হতে।   সেই আহ্বানে সাড়া দিয়েছেন অনেক তারকাই। তাঁদের মধ্যে ছিলেন আলমগীর, অঞ্জনা, সারা যাকের, আলীরাজ, রিয়াজ, রোকেয়া প্রাচী, ইরেশ যাকের, দিনাত জাহান মুন্নী, দেলোয়ার জাহান ঝন্টু, মুশফিকুর রহমান গুলজার, চয়নিকা চৌধুরী, বদিউল আলম খোকন, শাহীন সুমন, মুস্তাফিজুর রহমানআরো পড়ুন


চুয়াডাঙ্গায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার উকতো গ্রামে শুক্রবার দিবাগত রাত ২টায় কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ব্যক্তির নিহতের কথা জানিয়েছে পুলিশ। নিহত রুহুল আমীন (৪৮) চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার শান্তিপাড়ার মৃত মফিজ উদ্দীনের ছেলে। পুলিশ বলছে, সে জেলার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তার নামে জেলার বিভিন্ন থানায় ১৬টি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি শুটারগান, কয়েক রাউন্ড গুলি ও এক বস্তা ফেনসিডিল উদ্ধারের কথা জানিয়েছে পুলিশ। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খানের ভাষ্য, বিপুল পরিমাণ মাদক পাচার হচ্ছে, এমন সংবাদের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে অবস্থান নেয় পুলিশ। সেখানে ৭/৮ জন মাদকআরো পড়ুন


বর্ষবরণে ব্যাগ বহন নিষিদ্ধ, র‌্যাবের কড়া নিরাপত্তা

বর্ষবরণ অনুষ্ঠানকে ঘিরে সারা দেশে র‌্যাবের পক্ষ থেকে গড়ে তোলা হয়েছে নিরাপত্তাবলয়। যে কোনো ধরনের নাশকতা এড়াতে প্রস্তুত এই বাহিনী। রাজধানীর রমনা পার্ক, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা ও ধানমণ্ডিসহ বিভিন্ন এলাকায় নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। বড় বড় সব ভেন্যু সিসিটিভির আওতায় নিয়ে পর্যবেক্ষণ করছে র‌্যাব। পহেলা বৈশাখ ঘিরে রমনা বটমূলে র‌্যাবের নিরাপত্তাব্যবস্থা পর্যবেক্ষণের পর শুক্রবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন র‌্যাবের ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক কর্নেল মো. জাহাঙ্গীর আলম। কর্নেল জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নববর্ষের বড় বড় ভেন্যুগুলোকে আমরা কয়েকটি সেক্টরে ভাগ করেছি। এসব সেক্টরে আউটার প্যারামিটার প্যাট্রোল থাকবে। তাছাড়াআরো পড়ুন


আগের রাতেই কেরোসিন ও ম্যাচ রেখেছিল হত্যাকারীরা!

মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে (১৮) যৌন নিপীড়নের পর কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় আগের রাতেই কেরোসিন ও ম্যাচ রেখে এসেছিল হত্যাকারীরা। অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলার দুই সহযোগী নুরুদ্দিন ও শাহাদাত হোসেন শামীম আগের রাতে কেরোসিন ও ম্যাচ রেখে এসেছিল। তারা দুইজনই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। ইতিমধ্যে নুরুদ্দিন এবং শামীমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি সূত্র যুগান্তরকে জানায়, গত ৬ এপ্রিল আলিম পরীক্ষা কেন্দ্রে রাফিকে পুড়িয়ে মারতে বহিষ্কৃত অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলার সহযোগীরা অংশ নিয়েছে- এটা এক রকম নিশ্চিত। এমনকি এ ঘটনাটি পুরোপুরি পরিকল্পিত। ধারণা করা হচ্ছে, তারা দু’জন পরীক্ষার আগের দিন রাতেআরো পড়ুন


তেঁতুল তত্ত্বের মালিকরা একাত্তরে নারীর গায়ে হাত দিয়েছিল

‘নুসরাত হত্যাকাণ্ড আবারও প্রমাণ করলো ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের জন্য আসলে তেঁতুলতত্ত্ব দায়ী। তেঁতুল তত্ত্বের মালিকরা একাত্তরে নারীর গায়ে হাত দিয়েছিল। এই তেঁতুল তত্ত্বের লোকেরাই আজকে নারীর গায়ে হাত দিয়েছে। নুসরাতকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে। শনিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘অনলাইন সাংবাদিকতা: চ্যালেঞ্জ ও সম্ভবনা’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন জাসদ সভাপতি ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি। অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘আন্দোলন ৭১ ডটকম’ এর দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। হাসানুল হক ইনু বলেন,  গণমাধ্যমের আগের চ্যালেঞ্জ ছিল এইসব ধর্ম ব্যবসায়ী, সাম্প্রদায়িক শক্তিআরো পড়ুন


আওয়ামী লীগ নেতারও বিচার চাইলেন নাসিম

ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির খুনির আশ্রয়দাতা তথাকথিত আওয়ামী লীগ নেতার বিচারের দাবি জানিয়েছেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, দেখলাম আওয়ামী লীগের একজন নেতা নুসরাতের মূল খুনি মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলাকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছে। এসব লোক হচ্ছে ‘ক্রিমিনাল’। এরা কখনও আওয়ামী লীগ করতে পারে না। জীবনে এরা কোনও দিন আওয়ামী করেনি, আওয়ামী লীগে বিশ্বাসও করে না। এই সমস্ত লোককেও নুসরাতের খুনির সঙ্গে বিচার করতে হবে। এদেরকে কোনও ছাড় দেয়া যাবে না। এরা আওয়ামী লীগের দুর্নাম করে। শনিবার দুপরে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউস্থ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামীআরো পড়ুন


জামাত নেতা থেকে কিভাবে খুনি সিরাজ উদ-দৌলা ক্ষমতাসীন দলের সাথে সুসম্পর্ক হয়।

ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার বহিষ্কৃত অধ্যক্ষ ও রাফি হত্যা মামলার প্রধান আসামি সিরাজ উদ্দৌলা একজন জামায়াত নেতা। তবে নিজের সুরক্ষা নিশ্চিতে ২০০১ সাল থেকেই ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে তিনি গড়ে তুলেছিলেন সুসম্পর্ক। অনুসন্ধানে জানা গেছে, ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এলে তিনি ম্যানেজিং কমিটিতে সোনাগাজী পৌর বিএনপির সভাপতি আলাউদ্দিন এবং তার সহযোগী জামায়াত নেতা ও পৌর জামায়াতের সাবেক সভাপতি আবদুল মান্নানকে সদস্য করেন। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর সে বিপাকে পড়ে যায়। পরে ২০১২ সালে আলাউদ্দিন ও আবদুল মান্নানকে বাদ দিয়ে ম্যানেজিং কমিটিতে সদস্য করেন আওয়ামীআরো পড়ুন


এসো হে বৈশাখ, এসো এসো

‘মুছে যাক গ্লানি, ঘুঁচে যাক জরা/ অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা’- সকল না পাওয়ার বেদনাকে ধুয়ে মুছে, আকাশ-বাতাস ও প্রকৃতিকে অগ্নিস্নানে শুচি করে তুলতেই আবার এসেছে পহেলা বৈশাখ।     শনিবার বছরের শেষ দিনের রক্তিম সূর্যগ অস্ত যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই হারিয়ে গেছে বাংলা বছর ১৪২৫। রোববার ভোরের সূর্য স্বাগত জানাবে বাংলা নববর্ষ ১৪২৬’কে। নতুন বছরের প্রথম দিনটি চিরায়ত আনন্দ-উদ্দীপনা আর বর্ণাঢ্য উৎসবের মধ্য দিয়ে হাজির হবে প্রতিটি বাঙালির হৃদয়ে। বছরের এ প্রথম দিনে গ্রীষ্মের খরতাপ উপেক্ষা করে বাঙালি মিলিত হবে তার সর্বজনীন এই অসাম্প্রদায়িক উৎসবে। দেশের পথে-ঘাটে, মাঠে-মেলায়, অনুষ্ঠানে থাকবে কোটিআরো পড়ুন


শ্রীপুরে প্রবাসীর স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গাজীপুরের শ্রীপুরে এক প্রবাসীর স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার উপজেলার নয়নপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম রোজিনা আক্তার (২৮)। তিনি টাঙ্গাইল জেলার সখিপুর উপজেলার হাতিয়া রাজাবাড়ি গ্রামের আব্দুল হামিদের মেয়ে। নিহতের মা শিরিন আক্তার জানান, একই এলাকার নাসির উদ্দিনের সাথে প্রায় ১৬ বছর আগে রোজিনার বিবাহ হয়। তাদের একটি ছেলে ও একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। জামাতা নাসির উদ্দিন সিংঙ্গাপুর প্রবাসী। সে আমার মেয়েকে খোরপোষের টাকা পয়সা না দেওয়ায় রাগ করে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার নয়নপুর বেলাল মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থেকে স্থানীয় জাবের স্পিনিং কারখানায় শ্রমিকের কাজ করতো। সম্প্রতিআরো পড়ুন


তিনটি মেয়েকে অধ্যক্ষের যৌন হয়রানির আমি সাক্ষী, বললেন ফেনী মাদ্রাসার গার্ড

ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার একজন গার্ড বলেন, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলার বিরুদ্ধে অসংখ্য অভিযোগ থাকলেও ক্ষমতাধর লোকদের সাথে দহরম থাকার কারণে কখনো তাকে বিচারের মুখে পড়তে হয়নি। কতিপয় আওয়ামী লীগ নেতাও সাবেক এই জামায়াত নেতাকে নানা অপকর্মে সাহায্য সহযোগিতা করতেন। ডেইলি স্টার শনিবার এক সাক্ষাতকারে এসব কথা বলেন তিনি। মাদ্রাসার এই গার্ড জানান, অধ্যক্ষ সিরাজের দুষ্কর্মের ঘটনা জানার কারণে মাদ্ররাসার কোন মেয়েই তার কাছে একাকি যেত না। তারা দলবদ্ধ হয়ে যেত। কোন শিক্ষার্থী তার বিরুদ্ধে কথা বলতে সাহস পেত না। তিনি বলেন, মাদ্রাসার ১৫ টি দোকান ও দুটি ব্যাংকের ভাড়াআরো পড়ুন