Main Menu

পুলিশকে পিটিয়ে আহত করলো ছাত্রলীগ নেতা।

শেরপুরে দুই পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় এক ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার শ্রীবরদী উপজেলা বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ জানায়, শ্রীবরদী টেঙ্গরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের জন্য আদায় করা টাকা থেকে চাঁদা দাবি করে উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জিয়াউল হক ও তার সহযোগীরা। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে এসএসসি পরীক্ষার্থী মেহেদী হাসানকে মারধর করে তারা। পরে ওই পরীক্ষার্থীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশ জিয়াউল হকসহ ১২ জনের নাম উল্লেখ্য করে শেরপুর শ্রীবরদী থানায় মামলা করা হয়। এর জেরে ওই থানার এএসআই রফিকুল ইসলামের উপর হামলা চালায় ক্ষুব্ধ ছাত্রলীগ কর্মীরা। খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করতে এএসআই আব্দুল হান্নান ছুটে এলে তাকেও বেধড়ক পেটায় তারা। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এ সময় উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জিয়াউল হককে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় পুলিশের কাজে বাধা ও হামলার অভিযোগ এনে জিয়াউল হককে প্রধান আসামি করে ৪০ জনের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা করে পুলিশ।

এসএসসি পরীক্ষার্থী মো. মেহেদী হাসান বলেন, ‘এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের টাকা তোলার সময় আমার কাছে চাঁদা দাবি করে। তাদেরকে চাঁদা না দেয়ায় আমাকে মারধর করে।’

শেরপুর শ্রীবরদী থানা সহকারী উপ-পরিদর্শক আব্দুল হান্নান বলেন, ‘এএসআই রফিকুল ইসলামকে ছাত্রলীগের কর্মীরা মারধর করছে; খবর পেয়ে আমি সেখানে গেলে তারা আমার ওপরেও হামলা চালায় এবং বেদম প্রহার করে।’

শেরপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. বিল্লাল হোসেন বলেন, ‘দায়িত্বরত অফিসারদের ওপর হামলার ঘটনায় একজনকে তাৎক্ষণিক স্পট থেকে গ্রেফতার করা হয়। অভিযুক্ত বাকিদেরকে আটক করার প্রচেষ্টা চলছে।’






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*