প্রাণের ৭১

শুক্রবার, মার্চ ১৩th, ২০২০

 

ইরানে করোনায় মৃত্যুমিছিল, খোঁড়া হচ্ছে গণকবর!

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে মৃত্যুমিছিলের প্রেক্ষিতে ইরানে বিশাল-বিশাল গণকবর খোঁড়া হচ্ছে। দেশটির কোম অঞ্চলে এসব কবর খোঁড়া হচ্ছে বলে স্যাটেলাইট ছবিতে ধরা পড়েছে। দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, দেশটির সরকার করোনার ভয়াবহতা নিয়ে যা বলছে আসলে তা আরো বেশি। করোনার কারণে ইরানে গণকবর খোঁড়া হচ্ছে বলে নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে প্রথম ছবি ও খবর প্রকাশ করা হয়। বলা হয়েছে, গত ফ্রেব্রুয়ারিতে করোনায় মৃতদের কবর খোঁড়া হয়েছে পরবর্তীতে তা ৯১ মিটারে করা হয়। এছাড়া বিশেষজ্ঞরা ওয়াশিংটন পোস্টকে জানায়, ইরানে করোনায় মৃতের সংখ্যা বাড়ায় ৩০০ ফিটের গণকবর খোঁড়া হয়েছে। এছাড়া ম্যাক্সার টেকনোলজিসের ‘বেহেস্তে-ই মাসোমেহআরো পড়ুন


ইতালিতে একদিনে ২৫০ জনের মৃত্যু

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে ইতালিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ২ শ’ ৬৬ জনে দাঁড়ালো। শুক্রবার দেশটির কর্তৃপক্ষ এ তথ্য জানিয়েছে। ইতালির সিভিল প্রোটেকশন এজেন্সি জানায়, করোনার প্রাদুর্ভাব হানা দেয়ার পর থেকে এটি দেশটিতে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। সেইসঙ্গে আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ হাজার ছাড়িয়েছে। এর আগে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইউসেপ্পে কোন্তে ৬ কোটি মানুষকে ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন এবং জরুরি ভ্রমণের ক্ষেত্রেও অনুমোদন নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। এক টেলিভিশন ভাষণে তিনি বলেন, হাতে আর সময় নেই। ইতালির স্বার্থে আমাদের সবাইকেই কিছু না কিছু ত্যাগ স্বীকারআরো পড়ুন


করোনার রেড জোন ইতালি’র শেষ ফ্লাইটে বাংলাদেশ ঢুকেছেন শতাধিক প্রবাসী!

চীনের পর সর্বাধিক করোনাভাইরাসে মহামারি রূপ নেয়া ইতালির ভেনেতো রিজিওন থেকে শতাধিক বাংলাদেশী ভেনিস এয়ারপোর্ট থেকে এমিরাতের শেষ ফ্লাইট যোগে বাংলাদেশে এসছেন বলে জানা গেছে। বাংলাদেশের বিমানবন্দরগুলোর করোনা যাচাইয়ের সক্ষমতা প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ার পর নবাগত এই প্রবাসীদের যথাযথ যাচাই না করলে দেশে করোনা ভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে যেতে পারে বলে ধারণ করা হচ্ছে। বিশ্বস্ত সূত্রে ও ইতালিয়ান সংবাদ মাধ্যম ‘লা নোভা’ পত্রিকার একটি ভিডিওতে দেখা যায় শুক্রবার (১৩ মার্চ) সকালে শতাধিক বাংলাদেশি এমিরাতের একটি ফ্লাইটে চড়ে বাংলাদেশের পৌঁছান। ইতালির ভেনিস এয়ারপোর্ট থেকে এমিরাতের এটি বাংলাদেশের শেষ ফ্লাইট ছিল। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়-আরো পড়ুন


ভারতের সাহায্যে চীন থেকে আসা ২৩ বাংলাদেশী দেশে ফিরছেন।

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার পর স্বাস্থ্য ছাড়পত্র নিয়ে শনিবার দেশে ফিরছেন ২৩ বাংলাদেশি।বাংলাদেশ সরকারের আর্থিক সহায়তায় শনিবার বিকালে ইন্ডিগো এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে ঢাকার উদ্দেশ্যে নয়াদিল্লি ত্যাগ করবেন তারা।খবরইউএনবির। বৃহস্পতিবার বেশিরভাগ শিক্ষার্থী এবং এক শিশুসহ একটি পরিবারের ওই বাংলাদেশি নাগরিকদের প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে এবং ‍এর মধ্যে কেউই করোনাভাইরাস আক্রান্ত হননি। ২৩ জন সদস্যের ওই দলে থাকা এক শিক্ষার্থী ফোনে বার্তা সংস্থাটিকে বলেন, ‘আমরা শুক্রবার স্বাস্থ্য ছাড়পত্র পাব এবং শনিবার ঢাকায় ফিরতে পারব বলে আশা করছি।’ ঢাকায় অবস্থিত ভারতীয় হাইকমিশনকে ওই শিক্ষার্থী জানান, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি ভারতীয়আরো পড়ুন


করেনা ভাইরাস প্রতিরোধে ফ্রান্সে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা।

করোনাভাইরাসের কারণে ফ্রান্সে গত এক শতাব্দীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি খারাপ স্বাস্থ্য সঙ্কট দেখা দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশ্য দেয়া এক ভাষণে ফান্সের প্রেসিডেন্ট বৈশ্বিক করোনাভাইরাস প্রেক্ষিতে সতর্কতা মূলকভাবে দেশটির সকল ধরনের স্কুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করার এই ঘোষণা দেন। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করার প্রেক্ষিত বর্ণনা করে দেশটির প্রেসিডেন্ট বলেন, ‌এটি ফ্রান্সের এ যাবৎকালের সবচেয়ে স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিপূর্ণ পরিস্থিতি। এ ছাড়া ফরাসি প্রেসিডেন্ট দেশটির সকল ৭০ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকদের অধিক সতর্কতা অবলম্বন করার পরামর্শ দিয়ে বলেছেন, বিনা প্রয়োজনে বাইরের কারও সঙ্গে দেখাআরো পড়ুন


করোনাকে ‘আল্লাহর অভিশাপ’ বলা চিন্তাবিদই আক্রান্ত

করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি চীনের উহানে। এদিকে, করোনা ভাইরাস ‘আল্লাহর অভিশাপ’ চীনের ওপর বর্ষিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছিলেন ইরাকের শিয়া ইসলামিক চিন্তাবিদ হাদি আল মোদারেসসি। এখন তিনিই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম। গত ২৮ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক এক টেলিভিশন চ্যানেল মেমরি টিভিতে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ওই ইসলামিক চিন্তাবিদ বলেছিলেন, ‘এটা একেবারেই সত্যি চীনে যে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে, তা আল্লাহর অভিশাপ। প্রায় ১০০ কোটির বেশি মানুষ ওই দেশে বাস করে। কিন্তু চীনের মুসলমানদের চরম নির্যাতন করা হয়। চীনে মুসলমানদের জোর করে হারাম খাদ্যদ্রব্য খাওয়ানো হয়। ইসলামে পোকামাকড় খাওয়া নিষিদ্ধ।আরো পড়ুন