প্রাণের ৭১

শুক্রবার, জুন ১৯th, ২০২০

 

কর্মফল বোধ হয় এইটারেই বলে!

ডিজিটাল আইন তো করা হইছিল ব্লগারদের ঠেকানোর জন্য। সেই সময়ে এই আইনে পরোক্ষ সমর্থন দিয়েছিল আব্দুর নুর তুষার, মোস্তফা সারোয়ার ফারুকির মতন মডারেট মুসলমানেরা। সরাসরি সমর্থন দিয়েছিল হেফাজতে ইসলাম সহ অনান্য ইসলামি ঘরানার মাওলানা-মুফতি, মাদ্রাসার ছাত্র, ধার্মিক আম জনতা সবাই। আজকে ব্লগারদের অনেকে কবরে। অনেকে বিদেশে। অনেকে চুপচাপ হয়ে গেছে একেবারে।   কর্মফল বোধ হয় এইটারেই বলে। যারা যারা ব্লগারদের বিরুদ্ধে এই আইনকে সমর্থন দিয়েছিল তারাই আজকে আমার জাদু সোনারে ডিজিটাল আইনে ধরে নিয়ে গেছে বলে কান্নাকাটি করতেছে। মত প্রকাশের স্বাধীনতার জন্য আহাজারি শুরু করছে। তবে এখনো তারা শুধুই নিজেদেরআরো পড়ুন


স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতির করোনা মুক্তির জন্য দোয়া চাইলেন চট্টগ্রামের মোহাম্মদ হাসান

ডেক্স নিউজঃ বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এখন তিনি তার নিজ বাসায় অবস্থান করছেন। আজ ১৯ জুন শুক্রবার আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম সংবাদ মাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। করোনাভাইরাসের প্রথম থেকেই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকর্মীরা জনগণের সহযোগিতায় মাঠে সরব ছিলেন।স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ তিন-চারদিন আগে ঠাণ্ডা জ্বর ও কাশি ছিলো। পরবর্তীতে করোনা পরীক্ষা করার পরে তার করোনা পজিটিভ আসে। স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতির আশু রোগমুক্তি কামনা করে দেশবাসীর কাছে দোযা ও আশির্বাদ চেয়ে সংবাদআরো পড়ুন


২৪ ঘন্টায় দেশে করোনায় প্রাণ গেলো আরও ৪৫ জনের,শনাক্ত ৩২৪৩ সুস্থ ২৭৮১

মোহাম্মদ হাসানঃ জোন ভিত্তিক লকডাউন জোড়ালো করা হয়েছে, কিন্তু করোনা সংক্রমণের লাগাম টানা যাচ্ছে না। প্রাণঘাতি করোনা থেকে বাঁচতে কোন আশ্বাসেই এখনও সুফল মিলছে না। দেশে ক্রমশই বেড়ে চলেছে করোনা রোগীর সংখ্যা। সেই সাথে বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। তবে পাল্লা দিয়ে এগিয়ে চলেছে সুস্থ হওয়া মানুষের সংখ্যাও। গত ২৪ ঘন্টায় দেশে প্রাণঘাতী করোনা প্রাণ কেড়ে নিয়েছে আরও ৪৫ জনের। যার হাত ধরে দেশে করোনা সংক্রমণের শিকার হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ১ হাজার ৩৮৮ জন।নতুন শনাক্ত ৩২৪৩ জন সহ দেশে এই মুহুর্তে শনাক্ত এক লাখ ৫ হাজার ৫৩৫ জন। তবে আশার কথা হলোআরো পড়ুন


বিতর্কিত ডিজিটাল আইন ব্যবহার করে স্বাধীনমত প্রকাশ বন্ধ করছে বাংলাদেশ !

গত এপ্রিল মাসে বিতর্কিত আইনে কমপক্ষে ২০ জন সাংবাদিককে অভিযুক্ত বা গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত এপ্রিল থেকে মে প্রথম ভাগ পর্যন্ত বিতর্কিত ডিজিটাল সুরক্ষা আইনের (ডিএসএ) অধীনে বাংলাদেশের কমপক্ষে ২০ জন সাংবাদিককে অভিযুক্ত করা হয়েছে বা গ্রেপ্তার করা হয়েছে, যা দক্ষিণ এশীয় দেশটিতে বাক-স্বাধীনতা নিয়ে উদ্বেগ বাড়িয়েছে।   সরকারের সমালোচনা করা বা করোন ভাইরাস মহামারীকে সরকার পরিচালনার বিষয়ে রিপোর্টিংয়ের জন্য বেশ কয়েকজন  সাংবাদিক ও অনলাইন এক্টিভিষ্টকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম পোস্টের জন্য গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থার বাংলাদেশের  অনুচ্ছেদ  ১৯ নিয়ে গবেষণা অনুসারে চলতি বছরের মে ডিএসএর অধীনে ২২ জন সাংবাদিকসহআরো পড়ুন