প্রাণের ৭১

রবিবার, এপ্রিল ৪th, ২০২১

 

গোপনে বিয়ে করা যায় না, বিয়ে করতে হয় অ্যানাউন্স করে : আজহারী(ভিড়িও সহ)

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁর একটি রিসোর্টে গতকাল শনিবার হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে অবরুদ্ধ করে রাখার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার সময় তাঁকে এক নারীসহ আটক করা হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। কিছু সময় পর কয়েক হাজার হেফাজতকর্মী ‘রয়েল’ নামের ওই রিসোর্টে হামলা চালিয়ে মাওলানা মামুনুলকে মুক্ত করে নিয়ে যান। এ সময় হেফাজতকর্মীরা রিসোর্টে ভাঙচুরও করেন।       এই ঘটনা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া গতকাল সন্ধ্যা থেকেই তোলপাড়। নানা অভিমতে ভরে যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফরম। মামুনুল হক ওই নারীকে নিজের বিয়ে করা দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে পরিচয়আরো পড়ুন


'মামুনুল হক সুন্নি হলেও বিপদে পড়লে শিয়া হয়ে যেতে পারে, বলা যায় না'

মামুনুলদের সাত খুন মাফ করে দেয় ভক্তকুল : তসলিমা

ছবি : তসলিমা নাসরিনের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজ থেকে     ধর্ম ব্যবসায়ী মামুনুল হক তার অল্প বয়সী যৌনসঙ্গী নিয়ে শহরের বাইরে এক হোটেলে উঠেছে রাত কাটাতে, বা দিন কাটাতে। সহজে অনুমান করা যায়, উদ্দেশ্য যৌন সঙ্গম। ধরা পড়ার পর ব্যবসায়ী বলছে মেয়েটি নাকি তার দ্বিতীয় স্ত্রী। মুসলমানদের মধ্যে তো আবার যৌনসঙ্গীকে বিয়ে করার চল আছে, এই বিয়েকে বলা হয় মু’তা বিয়ে। যতক্ষণ সঙ্গম চলবে, ততক্ষণ বিয়ে টিকে থাকবে। সঙ্গম শেষ, টাকা ফেলো, তিন তালাক বলো।       এই মু’তা বিয়ে শিয়া মুসলিমদের মধ্যে বৈধ, সুন্নিদের মধ্যে নয়। মামুনুল হকআরো পড়ুন